22 ways in which the Indian economy was affected by DeMonetisation

0
14

November 8, 2018

Demonetisation has been proved, over the course of the past one year, to be a complete disaster for the Indian economy. For the economy, getting back on feet has been a herculean task.

Many people lost their lives, and lakhs lost their jobs. Businesses in both the formal and informal sectors have been devastated.

The purported aim of demonetisation, of recovering black money, has been proved to be an empty boast. The Reserve Bank of India (RBI) has stated that 99 per cent of the demonetised Rs 500 and Rs 1,000 currency notes, which formed an overwhelming 86 per cent of the paper currency in circulation, has come back into the economy, yet no black money has been traced.

1. Demonetisation failed all four stated objectives: curbing black money, corruption, terrorism and fake currency.

2. 99 per cent of demonetised currency came back to banks; so where did the black money go?

3. India is neither the fastest-growing economy in South Asia nor the fastest growing large economy in the world anymore.

4. International Monetary Fund (IMF) slashed India’s 2017-18 economic growth forecast by 50 basis points to 6.7 per cent.

5. Further, IMF cut India’s growth forecast for the next year, i.e., 2018-19, by 30 basis points to 7.4 per cent.

6. India’s GDP growth slowed down to 5.7 per cent in April-June. It was 7.1 per cent during the same period a year ago.

7. Bank credit growth to large industries contracted by 1.7 per cent and to medium companies by 4.1 per cent this year.

8. Only 448 new industrial and infrastructural projects were announced during the first quarter of 2017-18, the lowest since June 2014.

9. The value of stalled infrastructure projects in the quarter ended September 2017 increased to Rs 13.22 lakh crore. That is the fifth straight quarter of increase.

10. Agricultural growth in April-June 2017 declined to 2.3 per cent from 5.2 per cent in January-March 2017.

11. Gross fixed capital formation, a measure of private investment in the economy, grew by just 1.16 per cent during the April-June quarter compared to 7.39 per cent in the same period in 2016.

12. The Business Confidence Index (BCI) of the services sector fell by 5.3 per cent between April-July 2017.

13. The BCI of the capital goods and consumer non-durables sectors declined by 13.5 per cent and 10.3 per cent, respectively, between April -July 2017

14. Fiscal deficit at July-end touched 92.4 per cent of the budget. The deficit figure for the same period of 2016-17 was 73.7 per cent of the target.

15. Incremental bank credit in the current fiscal year is declining. It is now less by Rs 1.37 lakh crore from last year’s figure during the corresponding period of April to August: it is a negative growth of 1.8 per cent, which is a historical record.

16. In urban India, unemployment was 8.2 per cent in the week ended October 8. This is the highest unemployment rate in urban India in the past 11 months.

17. Reserve Bank of India’s (RBI) Consumer Confidence Survey showed that the Current Situation Index was in the pessimistic zone, reflecting the deterioration in the employment scenario, price level and income.

18. Households’ current perceptions on the general economic situation remained in the pessimistic zone for four successive quarters.

19. More than 150 people died due to demonetisation.

20. Unemployment increased to 7 per cent in the weeks following demonetisation: 25 crore daily wage workers lost employment.

21. In the micro, small and medium enterprises (MSME) sector there was a 50 per cent decline in revenue and 35 per cent of job loss.

22. If demonetisation was a surgical strike, the victim was the Indian economy.


নভেম্বর ৮, ২০১৮

নোটবাতিলে বিধ্বংস দেশের অর্থনীতি

কেন্দ্রীয় সরকারের স্বৈরাচারী, অমানবিক, অপরিকল্পিত নোটবাতিলের সিদ্ধান্তের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি আজ। এর ফলে বিধ্বস্ত হয়েছে দেশের অর্থনীতি, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাধারন মানুষ। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে প্রাণ হারিয়েছেন শতাধিক দেশবাসী।

কেন্দ্রের দাবি ছিল, কালো টাকা উদ্ধারের জন্যই এই সিদ্ধান্ত, কিন্তু, দেশের অর্থনীতিতে ফিরে এসেছে বাতিল হওয়া নোটের ৯৯ শতাংশ, হদিস মেলেনি কালো টাকার।

২০১৬–র ৮ নভেম্বর নোট বাতিলের এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা হওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যে প্রথম প্রতিক্রিয়া দিয়ে দেশের মধ্যে প্রথম এর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

একঝলকে দেখে নেওয়া যাক দেশের অর্থনীতি কি ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেঃ-

১. কালো টাকা দমনে, দুর্নীতি রুখতে, সন্ত্রাসবাদ ও জালনোট ঠেকাতে নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত পুরোপুরি ব্যর্থ।

২. বাতিল নোটের ৯৯% ব্যাঙ্কে ফিরে এসেছে, তাহলে কালো টাকা কোথায় গেল?

৩. ভারতবর্ষ এই মুহূর্তে না দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দ্রুততম ক্রমবর্ধমান অর্থনীতি। এমনকি পৃথিবীর দ্রুততম ক্রমবর্ধমান বৃহৎ অর্থনীতিও নয়।

৪. আইএমএফ ভারতের ২০১৭-২০১৮ সালের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হারের পূর্বাভাষ কমিয়ে ৬.৭% করেছে।

৫. আইএমএফ ভারতের ২০১৮-২০১৯ সালের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হারের পূর্বাভাষ কমিয়ে ৭.৮% করেছে।

৬. ২০১৭ সালের এপ্রিল-জুন মাসে জিডিপি বৃদ্ধির হার কমে হয়েছে ৫.৭%। আগের বছর একই সময় এই হার ছিল ৭.১%।

৭. বড় শিল্পে ব্যাঙ্ক ক্রেডিট গ্রোথ কমেছে ১.৭% ও মাঝারি শিল্পে ৪.১%।

৮. ২০১৭-১৮ সালের প্রথম কোয়ার্টারে মাত্র ৪৪৮টি শিল্প ও পরিকাঠামোগত প্রকল্প ঘোষিত হয়েছে, যা জুন ২০১৪-র পর সবথেকে কম।

৯. যে সকল পরিকাঠামোগত প্রকল্পের কাজ আটকে রয়েছে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত, তার পরিমাণ ১৩.২২ লক্ষ কোটি টাকা, যা গত পাঁচটি কোয়ার্টারে ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

১০. কৃষিক্ষেত্রে এপ্রিল-জুন ২০১৭ তে বৃদ্ধির হার ২.৩% যা জানুয়ারি-মার্চে ছিল ৫.২%।

১১. গ্রস ফিক্সড ক্যাপিটাল ফর্মেশন (যা অর্থনীতিতে বেসরকারি বিনিয়োগের মাপকাঠি) এপ্রিল-জুন কোয়ার্টারে বেড়েছে মাত্র ১.১৬%। যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৭.৩৯%।

১২. ২০১৭ সালের এপ্রিল-জুলাইয়ের মধ্যে সার্ভিস সেক্টরের ব্যবসা নির্ভর সূচক হার (BCI) ৫.৩% কমে গেছে।

১৩. ২০১৭ সালের এপ্রিল-জুলাইয়ের মধ্যে মূলধনী পণ্য ও কনজিউমার নন-ডিউরেবল খাতের নির্ভর সূচক হার (BCI) কমে হয়েছে যথাক্রমে ১৩.৫% এবং ১০.৩%।

১৪. জুলাইয়ের শেষে রাজস্ব ঘাটতি বাজেটের প্রায় ৯২.৪% শতাংশ ছুঁয়েছে। ২০১৬-২০১৭ সালে এই ঘাটতির পরিমাণ ছিল ৭৩.৭%।

১৫. এই অর্থবর্ষে ইনক্রিমেন্টাল ব্যাঙ্ক ক্রেডিট কমেছে। এপ্রিল থেকে আগস্টে গত বছরের তুলনায় এই পরিমাণ কমেছে ১.৩৭ লক্ষ কোটি টাকা। এটি আগের বছরের তুলনায় ১.৮% হ্রাস পেয়েছে, যা অভূতপূর্ব।

১৬. ৮ই অক্টোবর শেষ হওয়া সপ্তাহের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ভারতের শহরাঞ্চলে
বেকারত্বের হার ছিল ৮.২%। গত ১১ মাসে ভারতের শহরাঞ্চলে বেকারত্বের ক্ষেত্রে এই হার সর্বাধিক।

১৭. ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কনজিউমার কনফিডেন্স সমীক্ষা অনুসারে দেখা গেছে কারেন্ট সিচুয়েসন ইন্ডেক্স নিরাশাজনক। এর ফলে কর্মসংস্থান, দ্রব্যমূল্য ও আয়ের অবনতি ঘটেছে।

১৮. গত ১ বছরে ভারতের অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় নিরাশ দেশের গৃহস্থরা।

১৯. নোট বাতিলের ফলে প্রায় ১৫০ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

২০. নোট বাতিলের পর বেকারত্ব প্রায় ৭% বেড়ে গেছে। প্রায় ২৫ কোটি শ্রমিক-মজদুর কর্মহীন হয়েছেন।

২১. নোট বাতিলের ফলে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প ও বস্ত্র শিল্পের ক্ষেত্রে রাজস্বের ক্ষতি হয়েছে ৫০% এবং কর্মহীন হয়েছে ৩০%।

২২. নোট বাতিল যদি সার্জিকাল স্ট্রাইক হয় তাহলে তার শিকার হয়েছে ভারতীয় অর্থনীতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here